আপনি যদি কোন ওয়েব সাইটের সাথে জড়িত থাকেন তাহলে নিশ্চয় আপনার সাইটকে গুগোলের সার্চ রেজাল্ট এর টপ পজিশনে দেখতে চান? কয়েক মাস আগে আমাদের এই ক্লিপিং ওয়ার্ল্ড এর মালিক এই লক্ষ্যেই আমাদের সাথে যোগাযোগ করেন এবং আমরা তাকে এসইও সার্ভিস দেই।

তার সাইটটি একদমই নতুন ছিল। কিন্তু আপনি জেনে অবাক হবেন যে, মাত্র তিন মাসে আমরা তাদের সাইটে ১১৪০% ট্র্যাফিক বাঁড়াতে সফল হয়েছিলাম। ব্যাপারটি অবাক করার মত হলেও এটি সত্যিই ঘটেছিলো?

এটি এমএম আনিস একাডেমির আরও একটি সফলতার গল্প। নীচের কেস স্টাডি থেকে আমরা জানবো কিভাবে আমরা ক্লায়েন্টদের ছয় মাসের মধ্যে ০ থেকে ২ হাজার অর্গানিক ট্রাফিক ও ৩হাজার কিওয়ার্ড র‍্যাঙ্ক করাতে সাহায্য করেছি।

একদম শুরু থেকে শেষ রেজাল্ট পর্যন্ত এই আর্টিকেলটির সাথেই থাকুন আপনি সবটাই জানতে পারবেন।

আর আপনি চাইলে একই ফর্মূলা আপনার সাইটেও প্রয়োগ করতে পারেন। তাহলে চলুন আর সময় নষ্ট না করে শুরু করা যাক।

ওভারভিউ

ক্লায়েন্টের ইন্ডাস্ট্রিঃক্লিপিং ওয়ার্ল্ড
আমাদের সাথে কাজ শুরুঃএপ্রিল ২০২১
যখন আমাদের সাথে শুরু হয় তখন অর্গানিক ট্রাফিকঃ০ (শুরু থেকেই আমাদের সাথে কাজ করেছেন)
পরিষেবা প্রদান করা হয়েছেঃকিওয়ার্ড র‍্যাংক, অর্গানিক ট্রাফিক, ব্যাকলিংক পরিষেবা
সময়কালঃ৬ মাস
অর্গানিক ট্রাফিক এখনঃ২০০০+ অর্গানিক ট্রাফিক
অর্গানিক কীওয়ার্ড র‍্যাঙ্কঃ৩০০০+ 
দ্রষ্টব্যঃটোটাল ক্লিকের বৃদ্ধি, ট্র্যাফিক ভ্যালু বৃদ্ধি

ক্লাইন্টের প্রত্যাশা VS. ফলাফল

এপ্রিল ২০২১-এ, ক্লায়েন্ট সম্পূর্ণ নতুন একটি সাইট নিয়ে আমাদের সাথে যোগাযোগ করেছিল। ক্লায়েন্ট তাদের অর্গানিক ট্রাফিক বাড়াতে চেয়েছিল এবং কিওয়ার্ড র‍্যাঙ্ক করাতে চেয়েছিলো।

অনুমান করতে পারছেন এরপর কি হয়েছে?

ছয় মাসের মধ্যে, আমরা ০ থেকে ২ হাজার অর্গানিক ট্রাফিক ও ৩হাজার কিওয়ার্ড র‍্যাঙ্ক করাতে সাহায্য করেছি

আমরা কিভাবে এটা সফল করেছি?

আমরা শুরু থেকেই এই ক্লায়েন্টের জন্য কাজ করেছি। আর মাত্র ৬ মাসের মধ্যে এতগুলো অর্গানিক ট্রাফিক ও কিওয়ার্ড র‍্যাঙ্ক করানো এতটাও সহজ কাজ ছিলো না।

আমরা কিভাবে এটি সফল করেছি নিচে প্রতিটি স্টেপে ডিটেইলস আলোচনা করা হলো।

স্টেপ-১ঃ সাইটে ট্র্যাফিক নিয়ে আসা

শুরুতে আমাদের টার্গেট ছিল ৩-৪ মাসের মধ্যে সাইটে ট্র্যাফিক নিয়ে আসা এবং আমরা ১৫০+ টি দেশ টার্গেট করেছিলাম।

যেহেতু আমরা একদম শূন্য থেকে শুরু করেছিলাম সেহেতু ক্লায়েন্টের সাইটে কোন অর্গানিক কিওয়ার্ড বা ট্র্যাফিক কিছুই ছিল না। 

আমরা সাইটটির জন্য কিওয়ার্ড রিসার্চ, এসইও প্ল্যানিং ও কোয়ালিটি কন্টেন্ট এর উপর কাজ করা শুরু করলাম।

১ম মাসেই, আমাদের ১০৭ টি কিওয়ার্ড ইম্প্রেশনে এসেছে। গুগোল সার্চ কন্সোল এর ডাটা অনুযায়ী ১৫১ টি কিওয়ার্ড র‍্যাংকে এসেছে। 

যাই হোক, এবার চলুন দেখে নেওয়া যাক যে কতগুলো দেশ থেকে আমরা ইম্প্রেশন পাচ্ছি।

Ahref এর দেওয়া ডাটা অনুযায়ী আমরা আমেরিকা, ইন্ডিয়া ও ইউনাইটেড কিংডম থেকে যথাক্রমে ৪৯, ১৩ ও ৭ টি করে অর্গানিক কিওয়ার্ড পেয়েছি।

এছাড়া, গুগোল সার্চ কন্সোল এর ডাটা অনুযায়ী আমরা ৭৯ টি দেশ থেকে ইম্প্রেশন পেয়েছি।

প্রথম মাসেই আমরা ১৫১ টি অর্গানিক কিওয়ার্ড, ৭৯ টি দেশ থেকে ইম্প্রেশন ও ভিজিটর আসা শুরু করে।

পরবর্তী মাসের দিকে আগানো যাক। আমরা কি পেরেছি আমাদের টার্গেট পূরন করতে? চলুন দেখে নেই।

স্টেপ-২ঃ কন্টেন্ট অপ্টিমাইজেশন এবং কোয়ালিটি ফাউন্ডেশন লিঙ্ক

এর পরে আমরা মূলত ফোকাস করলাম কন্টেন্ট অপ্টিমাইজেশন এবং কোয়ালিটি ফাউন্ডেশন লিঙ্ক এর উপর। আমাদের এক্সপার্ট টিম কন্টেন্ট কে এসইও ফ্রেন্ডলি করার পাশাপাশি আরও এংগেজিং করে তুললো।

আর ব্যাকলিঙ্ক? আমরা কোয়ান্টিটির চেয়ে কোয়ালিটি লিঙ্ক বিল্ডিং এ বেশী ফোকাস করলাম। ফলে ধীরে ধীরে ব্যাকলিঙ্ক বাড়তে থাকলো।

ব্যাকলিঙ্কের সংখ্যা ৭ থেকে বেড়ে গিয়ে ৪০ এ দাড়িয়েছে। একই সাথে, বৃদ্ধি পেয়েছে অর্গানিক কিওয়ার্ড এর সংখ্যা। শুধু তাই নয়, কিওয়ার্ড গুলির পজিশনও উপরের দিকে আসছে।

৪৬০ টি অর্গানিক কিওয়ার্ড যুক্ত হয়েছে। সুতরাং, সবকিছুই সুন্দর ভাবে আগাচ্ছে। এই মাসে ১৩২ টি দেশ থেকে ইম্প্রেশন এসেছে। এডসেন্স প্রজেক্টের জন্য এর থেকে সেরা আর কি হতে পারে?

আমাদের কমিটমেন্ট ছিল ভিজটর আসা শুরু করবে ৩ মাসের মধ্যে। ইতিমধ্যে, ২য় মাসেই সেটা পূরন হয়ে গিয়েছে।

স্টেপ-৩ঃ কন্টেন্ট যোগ করা, ফাউন্ডেশন লিঙ্ক এবং কম্পিটিটরদের ব্যাকলিঙ্ক এনালাইস করা

এরপর আমরা প্ল্যান করলাম আরও কন্টেন্ট যোগ করার, ফাউন্ডেশন লিঙ্ক এবং কম্পিটিটর দের ব্যাকলিঙ্ক এনালাইস করার। মূলত আমরা অফ পেজ এসইও তে বেশি গুরুত্ব দিলাম।

এরপর রেজাল্ট কি আসলো?

এর উত্তরে আমি সবার প্রথমেই ব্যাকলিঙ্কের কথা বলতে চাই । ব্যাকলিঙ্ক যেহেতু ইনডেক্স হতে কিছুটা সময় লাগে, আগের মাসের অনেক ব্যাকলিঙ্ক ইনডেক্স হল। যার জন্য এই মাসে ব্যাকলিঙ্কের সংখ্যা আরো বেঁড়ে গেল।

এই মাসে ব্যাকলিঙ্ক এর সংখ্যা হয়ে গিয়েছে ১.৬৮ হাজার! রেফারিং ডোমেইন, অর্গানিক কিওয়ার্ড, ট্র্যাফিক ভ্যালু সব কিছুই পজিটিভ ভাবে আগাচ্ছে।

শুধু কি তাই? গুগল সার্চ কন্সোলের রিপোর্ট অনুযায়ী ৮০২ টি অর্গানিক কিওয়ার্ড যুক্ত হয়েছে।

এটাই কোয়ালিটি কিওয়ার্ড রিসার্চ, এসইও প্ল্যানিং এবং কোয়ালিটি কন্টেন্ট এর পাওয়ার। আর আমাদের এসইও এক্সপার্ট টিম সবকিছুই দারুন ভাবে বাস্তবায়ন করেছে।

স্টেপ-৪ঃ কন্টেন্ট, নিশ রিলেটেড লিঙ্ক এবং পাওয়ারফুল ব্যাকলিঙ্ক

আপনারা জানেন যে আমরা একদম ০ থেকে শুরু করি সাইটটি নিয়ে। শুরুটা প্রথম থেকে হলেও, এখন ক্লায়েন্টের সাইট নিয়ে কথা বলার মত কিছু হয়েছে। এই সম্ভাবনা কে আরও দূরে এগিয়ে নিয়ে যেতে এরপর আমরা কন্টেন্ট, নিশ রিলেটেড লিঙ্ক এবং পাওয়ারফুল ব্যাকলিঙ্কে মনোযোগ দেই।

ফলাফল কি আসলো সেটা ব্যাকলিঙ্ক দিয়েই শুরু করি।

আগের মাসের ব্যাকলিঙ্ক ১.৬ হাজার থেকে বেড়ে গিয়ে হল প্রায় দুই হাজার। বরাবরের মতই বাড়তে থাকলো অর্গানিক কিওয়ার্ড, ট্রাফিক এবং ট্র্যাফিক ভ্যালু।

বেশীর ভাগ ট্র্যাফিক আসছে ইউএসএ থেকে। সেই সাথে কিওয়ার্ড এর পজিশনও ভালো হচ্ছে। কিছু শক্তিশালী সাইটকেও পিছনে ফেলেছে আমাদের ক্লায়েন্টের এই সাইটটি।

এরপর কি হয়েছে জেনে অবাক হবেন, টোটাল ক্লিকের সংখ্যা ১৫৪ থেকে বেঁড়ে গিয়ে এক ধাক্কায় ১০০০+ !!

যে কোন সাইটের জন্য এটা আসলেই দারুন একটি বিষয়। ইম্প্রেশনও ২০ হাজারে পৌছেছে। একই সাথে সাইটটির অর্গানিক কিওয়ার্ড ৮০২ থেকে বেড়ে গিয়ে ১০০০ ছুয়েছে।

১৮২ টি দেশ থেকে ইম্প্রেশন এসেছে। মাত্র ৪ মাসের মধ্যে এর থেকে বেশী আর কি আশা করা যায়?

স্টেপ-৫ঃ অফ পেইজ এসইও

এখন আমরা প্রজেক্ট এর ৫ম মাসে আছি। আর এরই মধ্যে আমাদের ৬ মাসের যা কমিটমেন্ট ছিল তা পূরন হয়ে গিয়েছে। ৫ মাসের মধ্যেই উল্লেখযোগ্য ভাবে ট্র্যাফিক বৃদ্ধি পেয়েছে।

এই মাসে আমরা মূলত অফ পেইজ এসইও তে কাজ করলাম যেমন নিশ রিলেটেড ব্যাকলিঙ্ক, কম্পিটিটর ব্যাকলিঙ্ক, অন্যান্য পাওয়ারফুল ব্যাকলিঙ্ক।

এই মাসেও আমরা ভালো ফলাফল পেলাম। রেফারিং ডোমেইন, অর্গানিক কিওয়ার্ড এবং ট্র্যাফিক সবকিছুই দারুন ভাবে বৃদ্ধি পাচ্ছে। অর্গানিক ট্র্যাফিক তো গত মাসের তুলনায় ৩ গুন হয়ে গিয়েছে। রেফারিং ডোমেইন ১৪৪ থেকে ১৮৫! অর্গানিক কিওয়ার্ড ৮০০ থেকে জাম্প করে ১৫০০ তে উঠেছে।

এছাড়া ট্র্যাফিক ভ্যালু বেড়ে গিয়ে দাঁড়িয়েছে $২২১ যা গত মাসের তুলনায় ৪ গুন।

টোটাল ক্লিকের সংখ্যা এই মাসে গত মাসের ৩ গুন বেশী! এটা কি আশার থেকেও বেশী কিছু নয়? আমরা ১০০০ স্টাবল কিওয়ার্ড পেয়েছি।

স্টেপ-৬ঃ ফাইনাল লক্ষ্যে পৌঁছানো

এই মুহূর্তে ক্লায়েন্ট এর প্রত্যাশা অনেকটাই বেড়ে গিয়েছিল। আলহামদুলিল্লাহ এই মাসেও আমরা বরাবরের মতই সেটা পূরন করতে সফল হয়েছি। এই মাসে আমরা বেশ ভালো ইম্প্রুভমেন্ট আশা করেছিলাম এবং তা পেয়েও যাই।

অর্গানিক কিওয়ার্ড ১৫০০ থেকে বেড়ে গিয়ে সোজা ৩১০০। একই সাথে বৃদ্ধি পেয়েছে সাইটের অর্গানিক ট্রাফিক এবং তা এই মাসে ২৬০০ তে পৌছেছে। ট্যাফিক ভ্যালু যেটা গত মাসেও ছিল ২২১ ইউএসডি এই মাসে সেটি এখন ৪৭২ ইউএসডি।

টোটাল ক্লিকের সংখ্যা যেটি গত মাসেও ছিল ৩.২৯ হাজার, এই মাসে সেই সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়ে এখন ৮.৩৮ হাজারে চলে গিয়েছে! এছাড়াও টোটাল ইম্প্রেশন ৬০ হাজার থেকে বেড়ে গিয়ে প্রায় ২ লক্ষ্য।

তো আমাদের প্রজেক্ট শুরুর ৬ মাস শেষ হল এবং রেজাল্ট তো আপনাদের সামনেই।

আপনাকে কিভাবে সাহায্য করতে পারি

এই ছিল আমাদের সফলতার কাহিনী যেভাবে আমরা মাত্র ৬ মাসের মধ্যে ০ থেকে ৩০০০+ অর্গানিক কিওয়ার্ড অর্জন করি। আশা করি, আপনার সাইটের প্ল্যানিং এর জন্য এটি উপকারী হবে।

আমরা তাদের ট্রাফিক লক্ষ্য অর্জনে সাহায্য করার জন্য ক্লায়েন্টের সাথে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করেছি। আমরা যা করেছি তা দ্রুত, সহজ বা সস্তা ছিল না, তবে এটি যথেষ্ট কার্যকর ছিল।

 ব্যাপারটি অবাক করার মত না? আপনিও যদি নিজেকে এই অবস্থানে দেখতে চান কোন চিন্তা নেই এমএম আনিস একাডেমি আছে আপনার পাশে।

অতএব, আজই আমাদের স্বাগত অফারটি উপভোগ করুন; আমি প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি যে আপনি ফলাফলের দেখে খুশি হবেন!!

Similar Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *